ওজন কমাতে ডায়েট চার্ট খুঁজছেন? দেখে নিন ৩টি ডায়েট চার্ট !!

মেদ ভুঁড়ি কিংবা একটু বাড়তি ওজন কমানোর জন্য বেশিরভাগ মানুষ সবসময়ই বেশ চিন্তিত থাকেন। কী করলে ওজন কমবে, কী না খেলে ওজন কমবে, কোন খাবার ওজন কমায়, ডায়েট করতে চাইলে কীভাবে করতে হবে এসব ভেবে ঘন্টার পর ঘণ্টা পার হয়ে যায়। অনেকেই আছেন যারা ওজন কমাবার জন্য রাতের খাবার খান না। কিন্তু আপনি জানেন কি?

ওজন কমানোর জন্য রাতের বেলার খাবারের গুরুত্ব কতোটা? রাতের বেলা না খেলে দীর্ঘ ৮-১০ ঘণ্টা না খেয়ে থাকতে হবে। তাই রাতের বেলা খাওয়া বাদ দিয়ে ডায়েট করা মোটেও ভালো নয়। তাই রাতের বেলার ৩টি কার্যকর ডায়েট প্ল্যানে দ্রুত ওজন কমান।

# ডায়েট প্ল্যান ১- যারা ভাত জাতীয় খাবার পছন্দ করেন

অনেকেই আছেন যারা ভাবেন ভাত খেয়ে ওজন কমানো যায় না। কথাটি সম্পূর্ণ ভুল। পরিমিত পরিমাণ ভাত ওজন কমাতে বেশ সহায়ক। নিয়ম করে রাতের বেলা এই চার্টটি অনুসরণ করেই দেখুন ওজন কমে যাবে!

# ভাতের পরিমাণ ১ কাপ হতে হবে। কোনো ভাবেই এর চাইতে বেশি নয়।
# ১ টুকরো মাছ/ মাংস। মাঝারি আকৃতির এক টুকরো মাছ/ মাংস শরীরের আমিষের চাহিদা পূরণ করবে।

# ১ কাপ সবজি। কম তেলে বা তেলবিহীন সবজি ভাজি ফ্যাট অনেকাংশে কমায়। ১ কাপ পরিমাণ সবজি অবশ্যই ডায়েট চার্টে রাখবেন। সব চাইতে ভালো হয় কাঁচা সবজির সালাদ রাখলে।

# ১ কাপ ডাল। ডাল ফ্যাট কাটাতে সহায়তা করে। পাশাপাশি পুষ্টি যোগায় শরীরে।

# ১ টি ফল ও দই। খাবার শেষে ১ টি কলা, ১ টি আপেল কিংবা ১ টি কমলা খাবেন। এই ফলগুলো ফ্যাট কমাতে সাহায্য করে। আর ১/৪ কাপ টক দই। এটা খাবার হজমে সাহায্য করবে।

# ডায়েট প্ল্যান-২- যারা রুটি জাতীয় খাবার পছন্দ করেন। তাদের জন্য এই ডায়েট চার্ট। অনুসরন করে দেখুন, ওজন কমবে দ্রুত।

# ২/৩ টি পাতলা আটার রুটি। রুটিটি অবশ্যই আটার হতে হবে। লাল আটা হলে ভালো হয়। ময়দা ও পাউরুটি হলে চলবে না। কারণ ময়দার রুটি ও পাউরুটি খেলে ওজন বাড়ে।

# কম তেলে বা তেল বিহীন ১/২ কাপ সবজি আটার রুটির সঙ্গে খেতে পারেন।

# ডিম প্রোটিনের খুব ভালো একটি উৎস। ডিমের সাদা অংশে ক্যালোরি অনেক কম থাকে। তাই ১টি ডিমের সাদা অংশ খেতে পারেন। কিংবা এক টুকরো মাছ বা মাংস যা আপনার পছন্দ।

# কলা, আপেল কিংবা কমলা এই তিনটি ফলের যেকোনো ১টি খাবেন। দই খেতে চাইলে ২/৩ টেবিল চামচ খেতে পারেন।

# ডায়েট প্ল্যান-৩- এই ডায়েট প্ল্যানটি যে কেউ অনুসরণ করতে পারেন খুব দ্রুত ওজন কমাতে চাইলে। দ্রুত ওজন কমাতে খুবই কার্যকরী একটি চার্ট।

# আধা কাপ হাই ফাইবার কর্ণফ্লেক্সঃ হাই ফাইবার কর্ণফ্লেক্স ওজন কমাতে সাহায্য করে। তবে কর্ণফ্লেক্স অবশ্যই চিনি ছাড়া হতে হবে। যদি চিনি ছাড়া খেতে না পারেন তবে মধু ব্যবহার করতে পারেন।

# মাখন ছাড়া দুধে ক্যালোরির পরিমাণ অনেক কম থাকে। তাই ডায়েট চার্টে ১ কাপ মাখন ছাড়া দুধ অবশ্যই রাখবেন।

# এই ডায়েট চার্টে ফলের গুরুত্ব অনেক বেশি। বেশি করে ফল খাবেন রাতে। বিশেষ করে কলা ও সবুজ আপেল। এরা ফ্যাট কমাতে অনেক সহায়তা করে।

কর্ণফ্লেক্স, দুধ ও ফল একসঙ্গে মিশিয়ে খেয়ে নিন। দুধটা ঠাণ্ডা না খেয়ে গরম খাবেন। সঙ্গে খেতে পারেন এক মুঠো কাঠ বাদাম।

রাতের বেলা খাবার না খেয়ে থাকলে লাভের থেকে ক্ষতির পরিমাণই বেশি। ওজন তো কমবেই না বরং স্বাস্থ্যহানি ঘটবে। তাই রাতে বেলা না খেয়ে থাকার চেয়ে একটি ডায়েট চার্ট অনুসরণ করুন। দ্রুত ওজন কমাতে পারবেন।

নিয়মিত আপডেট পেতে লাইক দিয়ে আমাদের সাথে থাকুন